ঢাকা ০১:৪৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo বাংলাদেশের সঙ্গে যৌথ প্রতিরক্ষা সামগ্রী উৎপাদনে যেতে চায় ভারত Logo প্রতি বছর ভারত থেকে ১ বিলিয়ন ডলারের বিদ্যুৎ আমদানি করবে বাংলাদেশ Logo ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা Logo ক্ষমতার ক্ষমতালোভ আ’লীগকে হিংস্র করে তুলেছে: মির্জা ফখরুল Logo বিজয়ী জাতি হিসেবে সারাবিশ্বে আমরা মাথা উঁচু করে চলতে চাই : প্রধানমন্ত্রী Logo আকাশে বাংলাদেশি অসুস্থ, নামতে দেয়নি মুম্বাই, নামলো করাচিতে Logo পর্যটনখাতে মালদ্বীপের অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে চায় বাংলাদেশ Logo বাণিজ্য মেলাকে বহুমুখী করা হবে: বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী Logo দই বিক্রেতা সেই জিয়াউল হক পেলেন একুশে পদক Logo ঢাকায় সফরে আসছেন মার্কিন উপসহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী আফরিন

মিয়ানমারের কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

গণমুক্তি রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৫:০০:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ২৬ বার পড়া হয়েছে
দৈনিক গনমুক্তি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

 

বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, মিয়ানমারের আর কোন নাগরিককে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। মিয়ানমারে অভ্যন্তরীণ সংঘর্ষের কারণে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা মিয়ানমার বিজিপি সদস্যদের দু’এক দিনের মধ্যে জাহাজযোগে মিয়ানমার ফিরিয়ে নেবে। তাদের সঙ্গে আমাদের কোনো কনফ্লিক্ট নেই, কোনোরকম যুদ্ধ নেই, তারা আত্মরক্ষার্থে এখানে এসেছে।

বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় ১২ লাখ রোহিঙ্গা ৩৪টি ক্যাম্পে আশ্রয় নিয়েছে। ২০১৭ সালে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী বাংলাদেশে আসে। এখন রোহিঙ্গা বা যেই হোক কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

মঙ্গলবার ঢাকায় রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে হাইওয়ে পুলিশের সেবা সপ্তাহ-২০২৪ উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের একথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের ওপার থেকে আসা গোলায় দুইজন নিহত হয়েছেন। মর্টার শেল এসে পড়েছে সীমান্তবর্তী বাংলাদেশির ঘরে, গুলি এসে লেগেছে অটোরিকশায়। বিদ্রোহীদের সঙ্গে তুমুল লড়াইয়ের মধ্যে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপিসহ তিনশর বেশি মানুষ বাংলাদেশে পালিয়ে এসে আশ্রয় নিয়েছে বাংলাদেশে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যারা আত্মরক্ষার্থে এসেছে, তাদের ফিরিয়ে নিতে বলা হয়েছে। তারা নিয়ে যাচ্ছে। আমাদের বিজিবি, পুলিশ, কোস্টগার্ড সবাই অতন্দ্রপ্রহরীর মত কাজ করছে। সেখানে যুদ্ধ হচ্ছে, এ সীমানায় তাদের কেউ আসবে বলে মনে হচ্ছে না। তারপরেও যদি কেউ আসে তাদেরকে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

দীর্ঘদিন ধরেই মিয়ানমারে সেনাবাহিনী ও বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলোর মধ্যে সংঘর্ষ চলছে, যার আঁচ লেগেছে বাংলাদেশের সীমান্ত এলাকাতেও। সীমান্তের ওপারের মর্টার শেল ও গুলি এসে পড়ছে এপারে। ফলে বাংলাদেশিরা রয়েছেন আতঙ্কে।

এর আগে মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর নিধনযজ্ঞ থেকে বাঁচতে ২০১৭ সালে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আসে। সেই জাতিগত নিধনে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বা বিজপির সদস্যরা জড়িত ছিল কিনা, তা জানতে চাওয়া হয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের কাছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

মিয়ানমারের কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৫:০০:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

 

বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, মিয়ানমারের আর কোন নাগরিককে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। মিয়ানমারে অভ্যন্তরীণ সংঘর্ষের কারণে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা মিয়ানমার বিজিপি সদস্যদের দু’এক দিনের মধ্যে জাহাজযোগে মিয়ানমার ফিরিয়ে নেবে। তাদের সঙ্গে আমাদের কোনো কনফ্লিক্ট নেই, কোনোরকম যুদ্ধ নেই, তারা আত্মরক্ষার্থে এখানে এসেছে।

বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় ১২ লাখ রোহিঙ্গা ৩৪টি ক্যাম্পে আশ্রয় নিয়েছে। ২০১৭ সালে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী বাংলাদেশে আসে। এখন রোহিঙ্গা বা যেই হোক কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

মঙ্গলবার ঢাকায় রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে হাইওয়ে পুলিশের সেবা সপ্তাহ-২০২৪ উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের একথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের ওপার থেকে আসা গোলায় দুইজন নিহত হয়েছেন। মর্টার শেল এসে পড়েছে সীমান্তবর্তী বাংলাদেশির ঘরে, গুলি এসে লেগেছে অটোরিকশায়। বিদ্রোহীদের সঙ্গে তুমুল লড়াইয়ের মধ্যে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপিসহ তিনশর বেশি মানুষ বাংলাদেশে পালিয়ে এসে আশ্রয় নিয়েছে বাংলাদেশে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যারা আত্মরক্ষার্থে এসেছে, তাদের ফিরিয়ে নিতে বলা হয়েছে। তারা নিয়ে যাচ্ছে। আমাদের বিজিবি, পুলিশ, কোস্টগার্ড সবাই অতন্দ্রপ্রহরীর মত কাজ করছে। সেখানে যুদ্ধ হচ্ছে, এ সীমানায় তাদের কেউ আসবে বলে মনে হচ্ছে না। তারপরেও যদি কেউ আসে তাদেরকে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

দীর্ঘদিন ধরেই মিয়ানমারে সেনাবাহিনী ও বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলোর মধ্যে সংঘর্ষ চলছে, যার আঁচ লেগেছে বাংলাদেশের সীমান্ত এলাকাতেও। সীমান্তের ওপারের মর্টার শেল ও গুলি এসে পড়ছে এপারে। ফলে বাংলাদেশিরা রয়েছেন আতঙ্কে।

এর আগে মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর নিধনযজ্ঞ থেকে বাঁচতে ২০১৭ সালে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আসে। সেই জাতিগত নিধনে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বা বিজপির সদস্যরা জড়িত ছিল কিনা, তা জানতে চাওয়া হয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের কাছে।